বাইশে শ্রাবণ ।। রবীন্দ্র-নজরুল সম্পর্কের কয়েকটি দিক

শিল্প ও সাহিত্য: পোস্টকার্ড | প্রকাশিত: ০৬ আগস্ট ২০১৬, ০৯:১২ অপরাহ্ন
baisheysrabon_pc

রফিক সুলায়মান

আজ বাইশে শ্রাবণ, গুরুদেবের ৭৫তম প্রয়াণ দিবস। বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অন্যতম চরিত্র রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯৪১ সালের এই দিনে ইহলোকের মায়া ত্যাগ করে মঙ্গললোকে যাত্রা করেন। দেহগতভাবে বাংলা সংস্কৃতিলোক ত্যাগ করলেও তাঁর উপস্থিতি প্রতিদিন দীর্ঘ হচ্ছে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে আমরা যেসব অলংকারে সম্বোধন করি এর সবগুলোই নজরুলের দেয়া। 'গুরুদেব' 'বিশ্বকবি' 'কবিগুরু' ইত্যাদি সম্বোধনের মধ্যে শুধু 'কবিগুরু' কথাটি রবীন্দ্রনাথের একটি গানে আছে, যা তিনি স্রষ্টা বা পরমপ্রভুর উদ্দেশ্যে ব্যবহার করেছেন। গানটি হলোঃ 'প্রথম আদি তব শক্তি আদি পরমোজ্জ্বল।' লিঙ্কঃ https://youtu.be/g_5n0KYfSOk

আমরা জানি যে গুরুদেব তাঁর বিখাত 'বসন্ত' নাটিকা নজরুলকে উৎসর্গ করেছিলেন। এই ঘটনা নজরুলকে উদ্দীপ্ত করেছিলো। সে-সময় আলিপুর সেন্ট্রাল জেলে ছিলেন তিনি। সেখানেই তিনি রচনা করেন 'প্রলয়োল্লাস' কবিতাটি। নজরুলও তাঁর 'সঞ্চিতা' রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে উৎসর্গ করেন। নজরুলের অগ্নিবীণা, দোলন-চাঁপা, ছায়ানট, সর্বহারা, ফণি-মনসা, সিন্ধু-হিন্দোল, চিত্তনামা প্রভৃতি কাব্যগ্রন্থের বাছাই করা কবিতা নিয়ে ১৯২৮ সালে 'সঞ্চিতা' প্রকাশিত হয়। 'সঞ্চিতা' নজরুলের সঞ্চিত কাব্যসমূহের নির্বাচিত ফসল, যেখানে কাব্যজীবনের সাফল্যের প্রতিনিধিত্বকারী কবিতাসমূহ স্থান পেয়েছে। নজরুল 'সঞ্চিতা'র উৎসর্গপত্রে লিখেছেন : 'বিশ্বকবিসম্রাট শ্রী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শ্রীশ্রীচরণারবিন্দেষু।' এখানেই প্রথমবারের মতো চয়িত হয়েছে 'বিশ্বকবি' শব্দবন্ধটি। আর 'গুরুদেব' ডাকতেন তিনি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বিপুল শ্রদ্ধায়।

আমরা জানি যে নজরুল ছিলেন 'রবীন্দ্র-সঙ্গীতের হাফেজ।' নিজে সাহিত্যিক না হলে তিনি একজন ভালো রবীন্দ্র-সঙ্গীত প্রশিক্ষক হতে পারতেন। সে-সময় তিনি ২/৩ জনকে রবীন্দ্র-সঙ্গীত শিখিয়েছেনও।

রবীন্দ্রনাথের গানের সুর অবলম্বনে নজরুল একাধিক গান লিখেছেনঃ

১। এসো এসো হে তৃষ্ণার জল - এলো এলো রে বৈশাখী ঝড় https://youtu.be/wy6sxBcRQUA
২। দারুণ অগ্নিবানে রে - তৃষিত আকাশ কাঁপে রে https://youtu.be/RqU7iv1Um2U
৩। তোমারি গেহে পালিছ স্নেহে - তোমারি জেলে পালিছো ঠেলে https://youtu.be/98N0Tpa398Q
৪। অল্প লইয়া থাকি - শূন্য এ বুকে https://youtu.be/aOzWmPMPDDY

রবীন্দ্রনাথের প্রয়াণে ব্যথিত কবি নজরুল লিখেছেন কবিতা, সহশিল্পীদের নিয়ে স্বরচিত গানে কণ্ঠও দিয়েছেন 'ঘুমাইতে দাও শ্রান্ত রবিরে।' আর রবীন্দ্রনাথের বিখ্যাত ১৪০০ সাল কবিতার উত্তরও দিয়েছেন নজরুল।